কেন সবসময় সিটবেল্ট পরতে হবে

গাড়ির সিটবেল্টকে আমরা কখনোই খুব বেশি গুরুত্ব দেয় না, ভাবটা অনেকটা এরকম পরলেও  চলে, না পরলেও  চলে।  দুঃখজনক  হলো এইধরণের মানসিকতার জন্য প্রতিবছর লক্ষাধিক ( হ্যা আপনি ঠিক এ পড়ছেন, লক্ষাধিক ) লোক মারা যায় তারপরও আমরা অন্যদের ভুল থেকে শিক্ষা নেই না।  আমি বক বক করলে আপনাকে সম্ভবত সিটবেল্ট এর গুরুত্ব বোঝাতে পারবো না, কিন্তু এই ৫ মিনিট এর ভিডিওটা শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দেখলে আপনি নিজেও সিটবেল্ট পরবেন , অন্যদেরও পরতে  বলবেন।

 

আমরা হয়তো অনেকেই ভাবি এয়ারব্যাগ থাকলে সিটবেল্ট না বাঁধলেও চলে, যা মোটেও ঠিক নয়। সিটবেল্ট হলো প্রথম আর প্রধান নিরাপত্তা, “first line of defense”. এই ভিডিওটা থেকেও এই বিষয়টা পরিষ্কার বোঝা যায়।

 

আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়,  বাচ্চাদের জন্য আপনার উচিত বিশেষ ভাবে ডিজাইন করা child seat ব্যবহার  করা।  আপনি যদি ভেবে থাকেন দুর্ঘটনার সময় বাচ্চাকে শক্ত করে ধরে রাখবেন তাহলে বলতে হবে আপনি আগের ঘটেযাওয়া ঘটনাগুলো থেকে একটুও শিক্ষা নেন নি।  এই ভিডিওটা দেখেন, যেখানে ক্র্যাশ টেস্ট করা হয়েছে মাত্র ৩০ মাইল/ঘন্টা বা ৪৮ কিমি /ঘন্টা গতিতে।  আমি নিশ্চিত আপনার গাড়ি এর থেকে অনেক বেশি গতিতে চলে।

 

 

আর child seat সবসময়  “rear facing” পজিশন  এ ব্যবহার  করবেন।  নিচের ভিডিওটা দেখলে বেপারটা পরিষ্কার বুঝে যাবেন। মনে রাখবেন সাধারণ সিট/সিটবেল্ট বাচ্চাদের যথেষ্ট নিরাপত্তা দেয় না, তাই গাড়িতে বচ্চা নিয়ে নিয়মিত চলাফেরা করলে অবশ্যই child seat/child restraint ব্যবহার  করবেন।

 

 

সেফটি কোনো রকেট সাইন্স নয়, আজকে যে দুর্ঘটনাগুলো ঘটছে কোথাও না কোথাও একই দুর্ঘটনা আগেও ঘটেছে।  আমরা পূর্বের ঘটনা থেকে শিক্ষা নেই না বলে একই দুর্ঘটনা বার বার ঘটে।  আরেকটা ভিডিও শেয়ার করছি, আপনাকে ভয় দেখানোর জন্য, সিটবেল্ট না পরলে কি হতে পারে দেখেন।

 

 

নিজে সিটবেল্ট পরুন, অন্যদেরকেও পরতে উৎসাহিত করুন। ভালো থাকুন, নিরাপদ থাকুন, সুস্থ থাকুন।

বজ্রপাত থেকে সাবধানতা

প্রত্যেক বছরে আমাদের দেশে অনেক মৃত্যু ঘটে বজ্রপাতের কারণে। এই মৃত্যুগুলো বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এড়ানো সম্ভব যদি কিছু সাবধানতা অবলম্বন করা হয়। প্রথমেই […]

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.